SSCSSC Seen

SSC Unit 7 Lesson 4 (A); The beginning

image_pdfimage_print

It was late summer. August 26, 1910. A little girl was born to an Albanian descent, rich Catholic merchant’s family in a small town called Skopje, Macedonia. She was the youngest of the three siblings and was named Agnes Gonxha Bojaxhiu.

তখন ছিল গ্রীষ্মের শেষ সময়, ২৬ আ্গষ্ট ১৯১০। ম্যাসিডোনিয়ার স্কোপজে নামক ছোট শহরে আলবেনীয় বংশে ধনী ক্যাথলিক ব্যবসায়ী পরিবারে ছোট মেয়ে জন্ম গ্রহণ করে। তিন ভাই বোনের মধ্যে সে ছিল সবচেয়ে ছোট এবং তার নাম রাখা হয়েছিল অ্যাগনেস গোনজা বোজাজিউ।

Who had known that this tiny, little girl would one day become the servant of humanity– love and serve the poorest of the poor and become the mother of humanity. Yes, we are talking about none other than Mother Teresa.

এ সময় কে চিন্তা করতে পেরেছিল যে, এই ছোট্ট মেয়েটি একদিন মানবতার মা হবেন- দরিদ্র থেকে দরিদ্রতরদের ভালোবাসবে সেবা করবে। হ্যাঁ, আমরা মাদার তেরেসা ছাড়া আর কারো কথা বলছি না।

At the age of 12, she heard a voice from within her that urged her to spread the love of Christ. She decided that she would be a missionary.

বারো বছর বয়সে তিনি তাঁর অন্তর থেকে একটি ডাক শুনলেন, যা তাঁকে যিশুখ্রিষ্ট্রের ভালোবাসা ছড়িয়ে দিতে তাড়িত করল। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন যে তিনি একজন ধর্মপ্রচারক হবেন।

At the age of 18 she left her parental home. She then joined an Irish community of nuns called the Sisters of Loreto, which had missions in India.

আঠারো বছর বয়সে তিনি তাঁর বাবা মার বাড়ি ত্যাগ করলেন। তারপর তিনি সিস্টার্ স অভ লরেটা’ নামে নানদের (সন্ন্যাসিনীদের) একটি আইরিস সমাজে যোগদান করলেন, যার ভারতে ধর্ম প্রচারের সংগঠন ছিল।

After a few months of training at the Institute of the Blessed Virgin Mary in Dublin, Mother Teresa came to India. On May 24, 1931, she took her initial vows as a nun.

ডাবলিনের ব্লেসিড ভার্জিন ম্যারি ইনস্টিউটে কয়েক মাস প্রশিক্ষনের পর মাদার তেরেসা ভারেত চলে আসেন। ১৯৩১ সালের ২৪ মে তিনি সন্ন্যাসিনী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

From 1931 to 1948, Mother Teresa taught geography and catechism (religious instruction) at St. Mary’s High School in Kolkata (then Calcutta).

১৯৩১ সাল থেকে ১৯৪৮ সাল পর্যন্ত মাদার তেরেসা কলকাতায় (তৎকালিন ক্যালকাটা) সেইন্ট ম্যারি’স হাই স্কুলে ভূগোল ও ধর্মতত্ত্ব পড়াতেন।

However, the widespread poverty in Kolkata had a deep impact on Mother Teresa an in 1948, she received permission from her superiors to leave the convent and devoted herself to caring for the poorest of the poor in the slums of Kolkata.

তবে, কলকাতায় ব্যাপক দারিদ্র মাদার তেরেসার উপর গভীর প্রভাব ফেলে এবং ১৯৪৮ সালে তিনি তাঁর উর্ধ্বতনদের কাছ থেকে আশ্রম (মঠ) ত্যাগ করার এবং কলকাতার বস্তির হতদরিদ্রদের সেবা করার জন্য নিজেকে নিবেদিত করার অনুমতি লাভ করেন।

Mother Teresa was moved by the presence of the sick and dying on the streets of Kolkata. She founded the home for the dying destitute and named it ‘Nirmal Hridoy’, meaning ‘Pure Heart’.

কলকাতার রাস্তায় অসুস্থ ও মুমূর্ষুদের দেখে মাদার তেরেসা বিচলিত হন। তিনি মুমূর্ষু অসহায়দের জন্য একটি নিবাস প্রতিষ্ঠা করেন এবং এটির নাম দেন “নির্মল হৃদয়” যার অর্থ “বিশুদ্ধ হৃদয়”।

She and her fellow nuns gathered the dying people off the streets of Kolkata and brought them to this home. They were lovingly looked after and cared for. and cared for.

তিনি ও তার অনুসারী সন্ন্যাসিনীরা কলকাতার রাস্তা থেকে মুমূর্ষু লোকদের এই নিবাসে নিয়ে আসেন। তাদেরকে ভালোবাসা সহকারে দেখাশোনা ও যত্ন করা হয়।

Since then men, women and children have been taken from the streets and carried to Nirmol Hridoy. These unloved and uncared for people get an opportunity to die in an environment of kindness and love.

তখন থেকে অনেক পুরুষ, নারী এবং শিশুদেরকে রাস্তা থেকে নেওয়া হয় এবং নির্মল হৃদয়ে আনা হয়। এ সকল ভালোবাসা বির্বজিত ও অবহেলিত লোকজন দয়া ও ভালোবাসার পরিবেশে মৃত্যুর সুযোগ পায়।

In their last hours they get human and Divine love, and can feel they are also children of God. Those who survive, the Missionaries of Charity try to find jobs for them or send them to homes where they can live happily for some more years in a caring environment.

তাদের শেষ মুহূর্তে তারা মানবিক ও স্বর্গীয় ভালোবাসা পায় ও অনুভব করতে পারে তারাও স্রষ্টার সন্তান। যারা বেঁচে যায় তাদের জন্য স্বেচ্ছাসেবক দলের মিশনারিরা চাকরি খুঁজতে চেষ্টা করে অথবা তাদেরকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয় যেখানে তারা একটি যত্নের পরিবেশে আরও কিছু বছর সুখের সাথে বেচেঁ থাকতে পারে।

Regarding commitment to family, Mother Teresa said, “ Maybe in our own family, we have somebody, who is feeling lonely, who is feeling sick, who is feeling worried. Are we there?

পরিবারের প্রতি প্রতিশ্রুত সম্পর্কে, মাদার তেরেসা বলেছেন, “হতে পারে আমাদের নিজেদের পরিবারে, আমাদের কেউ আছে, যে একাকিত্ব অনুভব করে, যে অসুস্থতা অনুভব করে, যে দুশ্চিন্তা করে। আমরা কি তাদের সাথে আছি?

Are we willing to give until it hurts in order to be with our families, or do we put our interest first? We must remember that love begins at home and we must also remember that future of humanity passes through the family”.

আমাদের পরিবারের সাথে হওয়ার উদ্দেশ্যে আমরা কি তাদেরকে কিছু দিতে ইচ্ছুক যতক্ষণ না পর্যন্ত তারা আমাদেরকে মনে কষ্ট দেয় অথবা আমরা কি প্রথমে আমাদের আগ্রহ দেখাই? আমরা অবশ্যই স্মরণ রাখব যে ভালোবাসা পরিবার থেকে শুরু হয় এবং আমরা এও স্মরণ রাখব যে মানবতার ভবিষৎ পরিবারের ভিতর দিয়েই পার হয়।”

Mother Teresa’s work has been recognised throughout the world and she has received a number of awards. These include the Pope John XXIII Peace Prize (1971), the Nehru Prize for Promotion of International Peace & Understanding (1972), the Balzan Prize (1978), the Nobel Peace Prize (1979) and the Bharat Ratna (1980).

সারা পৃথিবীতে মাদার তেরেসার কাজ স্বৃীকৃত হয়েছে এবং তিনি অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ১৯৭১ সালের পোপ জন XXIII শান্তি পুরস্কার, আন্তজার্তিক শান্তি ও সমঝোতার জন্য ১৯৭২ সালের নেহেরু পুরস্কার, ১৯৭৮ সালের ব্যালজান পুরস্কার, ১৯৭৯ ষালের নোবেল শান্তি পুরস্কার এবং ১৯৮০ সালের ভারত রত্ন পুরস্কার।

Mother Teresa died at the age of 87, on 5 September 1997. The world salutes her for her love and compassion for humanity.

মাদার তেরেসা ১৯৯৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর ৮৭ বছর বয়সে মারা যান। মানবতার প্রতি তাঁর ভালোবাসা ও করুণার জন্য পৃথিবী তাঁকে সম্মান দেখায়।

She has taught us how to extend our hand towards those who need our love and support irrespective of creed, caste and religion.

তিনি আমাদের শিখিয়েছেন কীভাবে  তাদের প্রতি হাত বাড়াতে হয় যাদের মতবাদ, জাত ও ধর্ম নির্বিশেষে আমাদের ভালোবাসা ও সহায়তা প্রয়োজন।

Draped in a white and blue-bordered sari, wrinkled face, ever soft eyes and a saintly smile, is the picture of Mother Teresa in our mind.

নীল পাড়ের সাদা শাড়ি পরিহিত, কুচকানো মুখ, সার্বক্ষনিক কোমল দৃষ্টি এবং একটি পবিত্র হাসি সংবলিত মাদার তেরেসার চিত্র আমাদের মনে জাগরুক হযে আছে।

 

English evsjv
Vocabulary

1.Descent  (n)

2.Merchant  (n)

3.Sibling (n)

4.Humanity (n)

5.Urge (v)

6.Spread (v)

7.Decide (v)

8.Missionary (n)

9.Community (n)

10.Nun(n)

শব্দ সমাহার

1.বংশ

2.বণিক

3.একই মাতা-পিতার সন্তান

4.মানবতা

5.পিড়াপীড়ি/ তাড়া করা

6.ছড়িয়ে দেওয়া

7.সিদ্ধান্ত নেওয়া

8.ধর্মপ্রচারক

9.সমাজ/ সম্প্রদায়

10.সন্ন্যাসিনী

 

English evsjv
11. Geography (n)

12. Impact (n)

13. Slum (n)

14. Bring (v)

15. Opportunity (n)

16. Charity (n)

17. Hurt (v)

18. Recognize (v)

19. Salute (n/v)

20. Drape (v)

21. Wrinkle (n)

১১. ভূগোল

১২. প্রভাব/ ফল

১৩. বস্তি, নোংরা পল্লি

১৪. আনা/ আনায়ন করা

১৫. সুযোগ

১৬. সদায়তা

১৭. আঘাত করা

১৮. শনাক্ত করা/ চিনতে পারা

১৯. অভিবাদন করা

২০. পর্দা বা ভাঁজ করা কাপড় দিয়ে ঢাকা

২১. চামড়ায় ক্ষুদ্র কুঞ্চিত রেখা বা ভাঁজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *